Fri. Mar 1st, 2024

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 : History Page 510

[adsense1]

বিভাগ- ‘ক’ ১| সঠিক উত্তরটি বেছে নিয়ে লেখো:

১.১ কলহনের লেখা ভারতের প্রথম ঐতিহাসিক গ্রন্থ হল –
ক) অর্থশাস্ত্র
খ) রাজতরঙ্গিনী
গ) রামচরিত
ঘ) অন্নদামঙ্গল।

১.২ বাংলা ভাষায় প্রথম প্রকাশিত পত্রিকার নাম—
ক) দিগ্‌দর্শন
খ) সমাচার দর্পণ
গ) সোমপ্রকাশ
ঘ) বঙ্গদর্শন।

১.৩ ‘নাট্যশাস্ত্রের’ রচয়িতা হলেন—
ক) অভিনব গুপ্ত
খ) ভরত মুনি
গ) বাল্মীকি মুনি
ঘ) বিদ্যাসাগর।

১.৪ দেশীয় ভাষায় সংবাদপত্র আইন চালু হয়—
ক) ১৮৭২ খ্রিস্টাব্দে
খ) ১৮৭৮ খ্রিস্টাব্দে
গ) ১৮৭৬ খ্রিস্টাব্দে
ঘ) ১৮৯৪ খ্রিস্টাব্দে।

১.৫ ‘রামকৃষ্ণ মিশন‘ কবে প্রতিষ্ঠিত হয়—
ক) ১৮৯৭ খ্রিস্টাব্দে
খ) ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে
গ) ১৮৮৭ খ্রিস্টাব্দে
ঘ) ১৮৭৮ খ্রিস্টাব্দে।

[adsense1]

আরও পড়ুনঃ 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Bangla Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 English Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 History Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Geography Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Physical Science Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Mathematics Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Life Science Solution 

[adsense1] [adsense2]

১.৬ ‘মিরাৎ- উল-আখবার‘ কোন্ ভাষায় প্রকাশিত-
ক) ইংরাজি
খ) ফারসি
গ) উর্দু
ঘ) হিন্দি।

১.৭ ভারতের প্রথম ভাইসরয় ছিলেন-
ক) লর্ড মাউন্ট ব্যাটেন
খ) লর্ড এলগিন
গ) লর্ড ক্যানিং
ঘ) লর্ড ক্লাইভ।

১.৮ জমিদার সভার সভাপতি ছিলেন–
ক) রাধাকান্ত দেব
খ) প্রসন্নকুমার ঠাকুর
গ) আনন্দমোহন বসু
ঘ) দ্বারকানাথ ঠাকুর।

১.৯ ‘বর্তমান ভারত’ প্রথম প্রকাশিত হয়—
ক) হিকির গেজেটে
খ) উদ্বোধন পত্রিকায়
গ) দিগ্‌দর্শনে
ঘ) চন্দ্ৰভানু পত্রিকায়।

১.১০ রাজা প্রতাপাদিত্য রচনা করেন-
ক) রাম রাম বসু
খ) বিদ্যাসাগর
গ) মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার
ঘ) স্বামী বিবেকানন্দ।

১.১১ কবে বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল–
ক) ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে
খ) ১৯২০ খ্রিস্টাব্দে
গ) ১৯৫৫ খ্রিস্টাব্দে
ঘ) ১৮৫৬ খ্রিস্টাব্দে।

১.১২ ‘রশিদ আলি দিবস‘ পালিত হয়—
ক) ১২ ফেব্রুয়ারি
খ) ১২ জানুয়ারি
গ) ১২ মার্চ [adsense1]
ঘ) ১২ মে।

১.১৩ মাদারি পাশি যুক্ত ছিলেন—
ক) বারদৌলি
খ) সিপাহি বিদ্রোহ
গ) একা আন্দোলন
ঘ) মুণ্ডা বিদ্রোহ।

১.১৪ তেলেঙ্গানা আন্দোলন হয়—
ক) বিহারে
খ) উত্তরপ্রদেশে
গ) গুজরাটে
ঘ) হায়দ্রাবাদে।

১.১৫ স্বরাজ্য দলের সভাপতি ছিলেন–
ক) নেতাজি
খ) গান্ধীজি
গ) চিত্তরঞ্জন দাস
ঘ) মতিলাল নেহেরু।

১.১৬ ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রতিষ্ঠা করেন—
ক) বীণা দাস
খ) কুমুদিনী মিত্র
গ) সরলাদবী চৌধুরানী
ঘ) লীলা নাগ।

১.১৭ ‘ইয়ং ইন্ডিয়া’ পত্রিকার সম্পাদক কে ছিলেন—
ক) সি আর দাস
খ) নেহেরু
গ) ভগত সিং
ঘ) গান্ধীজি।

১.১৮ অলিন্দ যুদ্ধে নেতৃত্ব দেন-
ক) বিনয় বসু
খ) সুভাষ বসু
গ) সত্যেন বসু
ঘ) ক্ষুদিরাম বসু।

১.১৯ ভারতের বিসমার্ক কাকে বলা হয়-
ক) বাহাদুর শাহ
খ) নেতাজি
গ) বল্লভভাই প্যাটেল
ঘ) গান্ধীজি।

১.২০ হায়দ্রাবাদের শাসককে কী বলা হয়-
ক) রাজা
খ) নিজাম
গ) সুলতান
ঘ) নবাব।

 

[adsense1]

আরও পড়ুনঃ 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Bangla Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 English Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 History Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Geography Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Physical Science Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Mathematics Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Life Science Solution 

[adsense1] [adsense2]

বিভাগ-‘খ’ ২ । যে কোনো ষোলোটি প্রশ্নের উত্তর দাও : (প্রতিটি উপবিভাগ থেকে অন্তত একটি করে প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে) :

উপবিভাগ : ২.১ একটি বাক্যে উত্তর দাও :

(২.১.১) মোহনবাগান ক্লাব IFA শিল্ড করে জয়লাভ করে?

উত্তরঃ ১৯১১ খ্রিস্টাব্দে। 

Note: মোহনবাগান ক্লাব ১৯১১ সালের ২৬শে জুলাই ইস্ট ইয়র্কশায়ার রেজিমেন্ট দলকে ২-১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে প্রথমবারের মত আইএফএ শিল্ড জয়লাভ করে। এই জয় ছিল ভারতীয় ফুটবলের ইতিহাসে একটি যুগান্তকারী ঘটনা। এই জয়ের ফলে ভারতীয় ফুটবলের প্রতি বিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষিত হয়।

(২.১.২) ‘ছৌ’ কোন্ রাজ্যের জনপ্রিয় নাচ?

উত্তরঃ পুরুলিয়া রাজ্যের জনপ্রিয় নাচ হলো ‘ছৌ’। 

Note: ছৌ হলো একটি লোকনৃত্য। এই নৃত্য পুরুলিয়া রাজ্যে প্রচলিত। এই নৃত্যটি সাধারণত বিহু উৎসবের সময় পরিবেশন করা হয়।

 

(২.১.৩) বাংলার ‘ওয়াট টাইলার’ কাদের বলা হয়?

উত্তরঃ দিগম্বর বিশ্বাস ও বিষ্ণুচরণ বিশ্বাস। 

Note: দিগম্বর বিশ্বাস ও বিষ্ণুচরণ বিশ্বাস ছিলেন দুই বিখ্যাত বাংলার রসায়নবিদ। তারা বাংলায় রসায়ন বিজ্ঞানের বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

তাদের কাজের জন্য তাদেরকে বাংলার ‘ওয়াট টাইলার’ বলা হয়।

 

(২.১.৪) “History of Hindu chemistry” গ্রন্থটি কে রচনা করেন?

উত্তরঃ প্রফুল্লচন্দ্র রায়। 

Note: ফুল্লচন্দ্র রায় ছিলেন একজন বিখ্যাত বাংলার বিজ্ঞানী। তিনি বাংলায় রসায়ন বিজ্ঞানের বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

তিনি “History of Hindu chemistry” গ্রন্থটি রচনা করেন। এই গ্রন্থটিতে তিনি ভারতীয় রসায়ন বিজ্ঞানের ইতিহাস আলোচনা করেন।

 

[adsense3]

উপবিভাগ : ২.২ ঠিক বা ভুল নির্ণয় করো :

(২.২.১) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আত্মজীবনীর নাম ‘জীবনস্মৃতি’।

উত্তরঃ ঠিক। 

ব্যাখ্যাঃ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আত্মজীবনীর নাম ‘জীবনস্মৃতি’। এই গ্রন্থটি চার খণ্ডে বিভক্ত। এই গ্রন্থে রবীন্দ্রনাথ তার জীবনের বিভিন্ন ঘটনা ও অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেছেন।

সুতরাং, বলা যায় যে, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আত্মজীবনীর নামজীবনস্মৃতি’।

 

(২.২.২) ‘দীপালি সংঘ’ প্রতিষ্ঠা করেন মাতঙ্গিনী হাজরা।

উত্তরঃ ভুল। 

ব্যাখ্যাঃ লীলা রায় ছিলেন একজন বাঙালি সাংবাদিক, জনহিতৈষী এবং রাজনৈতিক আন্দোলনে সক্রিয় ব্যক্তি। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্রী ছিলেন। তিনি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সহকারী ছিলেন।

লীলা রায় ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দে ‘দীপালী ছাত্রী সংঘ’ নামে ছাত্রী সংগঠন গড়ে ভারতে প্রথম তার মাধ্যমে ছাত্রীদের মধ্যে রাজনীতি চর্চা শুরু করেন। এই সংগঠনটি ছাত্রীদের মধ্যে স্বাধীনতা আন্দোলনের চেতনা জাগ্রত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

দীপালী ছাত্রী সংঘের মাধ্যমে লীলা রায় ছাত্রীদেরকে ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে উৎসাহিত করেন। তিনি ছাত্রীদেরকে স্বাধীনতা আন্দোলনের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করতে উদ্বুদ্ধ করেন।

দীপালী ছাত্রী সংঘের মাধ্যমে লীলা রায় ছাত্রীদের মধ্যে রাজনৈতিক সচেতনতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি ছাত্রীদেরকে একজন জাতীয়তাবাদী হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করেন।

সুতরাং, বলা যায় যে, লীলা রায় ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দে ‘দীপালী ছাত্রী সংঘ’ নামে ছাত্রী সংগঠন গড়ে ভারতে প্রথম তার মাধ্যমে ছাত্রীদের মধ্যে রাজনীতি চর্চা শুরু করেন।

 

(২.২.৩) IACS প্রতিষ্ঠা করেন জগদীশচন্দ্র বসু।

উত্তরঃ ভুল।

ব্যাখ্যাঃ ঊনিশ শতকে ব্রিটিশ শাসিত ভারতে ভারতীয়দের মধ্যে আধুনিক বিজ্ঞানচর্চা সম্প্রসারণের উদ্দেশ্যে জাতীয় বিজ্ঞান গবেষণাগার নির্মাণে কলকাতা মেডিকেল কলেজের দ্বিতীয় এম. ডি. ডঃ মহেন্দ্রলাল সরকারের জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি ‘ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য কালটিভেশন অব সায়েন্স’ বা ‘ভারতবর্ষীয় বিজ্ঞানসভা’ (IACS) প্রতিষ্ঠা।

ডঃ মহেন্দ্রলাল সরকার ছিলেন একজন উদারপন্থী ও দেশপ্রেমিক মানুষ। তিনি মনে করতেন যে, ব্রিটিশ শাসনাধীন ভারতে ভারতীয়দের মধ্যে আধুনিক বিজ্ঞানচর্চার প্রসার ঘটানো দরকার। তিনি বিশ্বাস করতেন যে, বিজ্ঞানচর্চা ভারতের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে তিনি ১৮৭৬ সালের ২৯শে জুলাই তৎকালীন বাংলার লেফটেন্যান্ট গভর্নর স্যার রিচার্ড টেম্পল-এর সভাপতিত্বে এবং ফাদার লাঁফো, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, ইশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর প্রমুখ ব্যক্তির সহযোগিতায় ও কলকাতার বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দের উপস্থিতিতে বৌবাজার স্ট্রীটে প্রথম ‘ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য কালটিভেশন অব সায়েন্স’ (IACS) প্রতিষ্ঠা করেন।

IACS-এর প্রতিষ্ঠার ফলে ভারতে আধুনিক বিজ্ঞানচর্চার ক্ষেত্রে এক নতুন দিগন্তের সূচনা হয়। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ভারতীয় বিজ্ঞানীরা আধুনিক বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় গবেষণা করতে শুরু করেন। IACS-এর গবেষণা থেকে ভারতীয় বিজ্ঞানীরা বিশ্বের দরবারে খ্যাতি অর্জন করেন।

IACS-এর প্রতিষ্ঠার পর ডঃ মহেন্দ্রলাল সরকার এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হন। তিনি বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে অনুদান বা অর্থ সংগ্রহ করে এই প্রতিষ্ঠানের বিশ্বমানের গবেষণাগার ও একটি আধুনিক লেকচার থিয়েটার তৈরি করেন। সংগৃহীত অর্থে গবেষণাগারের প্রয়োজনীয় বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি কেনা হয়। পদার্থবিদ্যা, রসায়নশাস্ত্র, জ্যোতির্বিজ্ঞান, উদ্ভিদবিদ্যা, প্রাণীবিদ্যা, শারীরবিজ্ঞান ভূতত্ত্বসহ বিজ্ঞানের সমস্ত বিভাগে গবেষণা বা বিজ্ঞানচর্চার উদ্যোগ নেওয়া হয়।

IACS-তে পদার্থবিদ্যায় ফাদার লাঁফো, ডঃ সরকার স্বয়ং এবং পরে জগদীশচন্দ্র বোস, রসায়নে কানাইলাল দে, গণিতে আশুতোষ মুখোপাধ্যায়, ভূতত্ত্বে প্রমথনাথ বসু, জীববিজ্ঞানে নীলরতন সরকার এর মত দিকপাল পণ্ডিতেরা শিক্ষাদানে নিযুক্ত ছিলেন।

ডঃ মহেন্দ্রলাল সরকারের মৃত্যুর পর তাঁর পুত্র অমৃতলাল সরকার এই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। বিজ্ঞানী সি. ভি. রমন এই প্রতিষ্ঠানের গবেষণাগারে বিখ্যাত রমন এফেক্ট আবিষ্কার করেন ও ১৯৩০ খ্রিস্টাব্দে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী হন। ১৯৩৩ খ্রিস্টাব্দে কে. এস. কৃষ্ণন ‘Crystal Magnetism’-এর ওপর গবেষণা করে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভ করেন। বর্তমানে IACS-এর মূল গবেষণাগার বউবাজার স্ট্রিট থেকে সরিয়ে যাদবপুরে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

সুতরাং, বলা যায় যে, ডঃ মহেন্দ্রলাল সরকারের জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি হলো IACS-এর প্রতিষ্ঠা। এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠা ভারতে আধুনিক বিজ্ঞানচর্চার ক্ষেত্রে এক নতুন দিগন্তের সূচনা করে।

 

(২.২.৪) বাঁশের কেল্লা নির্মাণ করেন তিতুমির।

উত্তরঃ ঠিক।

ব্যাখ্যাঃ তিতুমির ছিলেন একজন বিখ্যাত বাংলার কৃষি বিদ্রোহী নেতা। তিনি ১৮৫০ সালে বাঁশের কেল্লা নির্মাণ করে ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেন।

তিতুমিরের এই বিদ্রোহকে ‘সিপাহী বিদ্রোহের পূর্বাভাস’ বলা হয়।

সুতরাং, বলা যায় যে, বাঁশের কেল্লা নির্মাণ করেন তিতুমির।

 

[adsense1]

উপবিভাগ : ২.৩ ‘ক’ স্তম্ভের সঙ্গে ‘খ’ স্তম্ভ মেলাও :

‘ক’ স্তম্ভ ‘খ’ স্তম্ভ
(২.৩.১) জগদীশচন্দ্র বসু (১) বর্তমান ভারত
(২.৩.২) স্বামী বিবেকানন্দ (২) ভারত সভা
(২.৩.৩) রাজা রামমোহন রায় (৩) বসু বিজ্ঞান মন্দির 
(২.৩.৪) সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় (৪) আত্মীয় সভা

উত্তরঃ 

‘ক’ স্তম্ভ ‘খ’ স্তম্ভ
(২.৩.১) জগদীশচন্দ্র বসু (৩) বসু বিজ্ঞান মন্দির 
(২.৩.২) স্বামী বিবেকানন্দ (১) বর্তমান ভারত
(২.৩.৩) রাজা রামমোহন রায় (৪) আত্মীয় সভা
(২.৩.৪) সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় (২) ভারত সভা
[adsense3]

 

উপবিভাগ : ২.৪ প্রদত্ত ভারতবর্ষের রেখামানচিত্রে নিম্নলিখিত স্থানগুলি চিহ্নিত করো ও নাম লেখো :
(২.৪.১) নদীয়া।
(২.৪.২) নীল বিদ্রোহের এলাকা।
(২.৪.৩) বোম্বাই।
(২.৪.৪) কোল বিদ্রোহের কেন্দ্র।

 

 

উপবিভাগ : ২.৫ নিম্নলিখিত বিবৃতিগুলির সঠিক ব্যাখ্যাটি নির্বাচন করো :

(২.৫.১) বিবৃতি : স্বামী বিবেকানন্দ ‘বর্তমান ভারত’ রচনা করেন।
ব্যাখ্যা-১: উদ্দেশ্য ছিল আধুনিক ভারতের ইতিহাস প্রণয়ন।
ব্যাখ্যা-২: নব্য হিন্দু ধর্ম প্রচার করা।
ব্যাখ্যা-৩: স্বাদেশিকতা প্রচার করা।

উত্তরঃ ব্যাখ্যা-২: নব্য হিন্দু ধর্ম প্রচার করা।

 

(২.৫.২) বিবৃতি : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ঔপনিবেশিক শিক্ষা ব্যবস্থা পছন্দ করতেন না।
ব্যাখ্যা-১: এই শিক্ষা ব্যবস্থা ছিল ব্যয় সাপেক্ষ ।
ব্যাখ্যা-২: এই শিক্ষাব্যবস্থার মাধ্যম ছিল মাতৃভাষা। [adsense1]
ব্যাখ্যা- ৩: শিক্ষার্থীদের মনের বিকাশ ঘটত না।

উত্তরঃ ব্যাখ্যা- ৩: শিক্ষার্থীদের মনের বিকাশ ঘটত না।

 

(২.৫.৩) বিবৃতি: মাতঙ্গিনী হাজরা পুলিশের গুলিতে মৃত্যুবরণ করেন।
ব্যাখ্যা-১: তিনি ছিলেন বিপ্লবী দলের সদস্যা।
ব্যাখ্যা-২: তিনি পুলিশের সঙ্গে সশস্ত্র সংগ্রামে মারা যান।
ব্যাখ্যা-৩: তিনি জেলের ভেতর মারা যান।

উত্তরঃ ব্যাখ্যা-২: তিনি পুলিশের সঙ্গে সশস্ত্র সংগ্রামে মারা যান।

 

(২.৫.৪) বিবৃতি : ‘হিন্দু প্যাট্রিয়ট’ নীল চাষিদের সমর্থন করে—
ব্যাখ্যা-১: সম্পাদক নিজে নীল কৃষক ছিলেন।
ব্যাখ্যা-২: জমিদাররা সম্পাদককে অর্থ সাহায্য করেন।
ব্যাখ্যা-৩: সম্পাদক ব্রিটিশ বিরোধী নির্ভিক সাংবাদিক ছিলেন।

উত্তরঃ ব্যাখ্যা-৩: সম্পাদক ব্রিটিশ বিরোধী নির্ভিক সাংবাদিক ছিলেন।

[adsense1]

আরও পড়ুনঃ 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Bangla Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 English Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 History Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Geography Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Physical Science Solution

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Mathematics Solution 

Madhyamik ABTA Test Papers 2024 Life Science Solution 

[adsense1] [adsense2] [bidad2]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Insert math as
Block
Inline
Additional settings
Formula color
Text color
#333333
Type math using LaTeX
Preview
\({}\)
Nothing to preview
Insert
error: Content is protected !!